অনলাইন ইনকাম সাইট

অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর নাম ও বিবরন

অনলাইন ইনকাম ফ্রিল্যান্সিং
বর্তমানে ওয়েব জগতে ডলার ইনকামের নামে রমরমা ব্যবসা চলছে।তবে তার মধ্যেই কিছু বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য অনলাইন ইনকাম সাইট আছে যেগুলো সম্পর্কে আজকে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

 

অনলাইন ইনকামঃ-

অনলাইন ইনকাম সাইট গুলো সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করার পূর্বে আমাদের জানতে হবে অনলাইন ইনকাম কি এবং অনলাইন ইনকামের সহজ ও বিশ্বস্ত উপায়গুলো সম্পর্কে।
ইন্টারনেটকে ব্যবহার করে যেকোন উপায়ে টাকা ইনকাম করাকেই অনলাইন ইনকাম বুঝায়।এখানে টাকা ইনকামের পদ্ধতি আলাদা হতে পারে।কিন্তু ইনকামের মূল উৎস হচ্ছে অনলাইন।
অনলাইন ভিত্তিক ইনকামের সবচেয়ে জনপ্রিয় পদ্ধতি গুলো হলো আউটসোর্সিং,ইকমার্স,ইশিক্ষন,এফলিয়েট মার্কেটিং,ডিজিটাল মার্কেটিং,অনলাইনে সার্ভিস বিক্রি অন্যতম।এছাড়াও আরোও অনেক মাধ্যম আছে যেগুলোর দ্বারা অনায়াসেই অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়।

অনলাইন ইনকাম সাইট

এক ফ্রিল্যান্সিং বা আউটসোর্সিং এর কাজের যে কত বড় ক্ষেত্র রয়েছে তা বলে শেষ করা যাবে না।সামান্য দক্ষতা থাকলে অনলাইন মার্কেটপ্লেস থেকে কাজ নিয়ে সফলভাবে সেই কাজ সম্পন্ন করে ভাল অংকের পারিশ্রমিক পাওয়া যায়।অনলাইনে অনেক বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য মার্কেটপ্লেস আছে যেখানে আপনার দক্ষতা অনুযায়ী কাজ খুজে পেতে পারেন।
যদি ইকমার্সের কথা বলি তাহলে এই মুহুর্তে ইকমার্সের জয়জয়কার চলছে।ব্যবসা বানিজ্য কেনা কাটা লেনদেন সবকিছুই অনলাইন ভিত্তিক হয়ে পড়ছে।এর সাথে যোগ হয়েছে এফলিয়েট মার্কেটিং এর ধারনা।যা পুরা বাজার ব্যবস্থার ডিজিটালাইজেশন করে ফেলেছে।

 

একজন চাইলেই অনেক নামীদামী ব্র্যান্ডের পন্য নিজের ওয়েবসাইটে বিক্রি করছে,ডিজিটাল মুদ্রা বা অনলাইন ব্যাংকিং এর সুবিধা নিয়ে ঘরে বসেই বিক্রিত পন্যের মুল্য হাতে বুঝে নিচ্ছে এরপর উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে সেই পন্য পৌঁছে যাচ্ছে কাস্টমারের ঘরের দরজায়।
অনলাইনে ডিজিটাল মার্কেটিং এর বিশাল ক্ষেত্র প্রস্তুত হচ্ছে।গুগল,ফেসবুক,ইন্সটাগ্রামের মতো সোশ্যাল মিডিয়া মনিটাইজেশন করে অনলাইন থেকে ইনকাম করার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

 

ইদানিং বৈশ্বিক মহামারির কারনে বিশ্বব্যাপি অচলাবস্থা সৃষ্টি হয়েছে,যার প্রভাব পড়েছে শিক্ষা ব্যবস্থার উপর।এ কারনেই অনেকটা বাধ্য হয়েই শিক্ষা ব্যবস্থাও অনলাইন নির্ভরতার দিকেই ঝুকছে।এইখানে শিক্ষা দান করে বিপুল পরিমান টাকা ইনকামের একটা সুযোগ সৃষ্টি হচ্ছে।
অনলাইন অনেক শিক্ষা বিষয়ক ওয়েবসাইট রয়েছে যেগুলো বাস্তব জীবনের কিছু সমস্যার উপর প্রতিযোগিতা হয়,বিশ্বের অনেক বড় বড় ইঞ্জিনিয়ার টিম ছাড়াও নানান পেশার নানান মানুষ সেইসব সমস্যার সমাধান বের করতে ঝাপিয়ে পড়ে।এভাবেই বেরিয়ে আসে অনেক বড় বড় সমস্যার সমাধান।আর সমাধানকারী রা পেয়ে যান মোটা অংকের পুরস্কার।

 

তবে আমাদের দেশে মানুষ বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে অল্প পরিশ্রমে বেশী লাভের আশায় পিটিসি,সার্ভে বা রেফারেল প্রোগ্রামগুলোর প্রতি বেশী ঝোক রয়েছে।বলে রাখা ভালো,এধরনের কাজগুলোতে প্রতারনার সম্ভাবনা বেশী থাকে।
বাস্তবতা হলো,অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায়গুলো যত সহজে বর্ননা করা হলো অনলাইন থেকে ইনকাম করা ততটাও সহজ নয়।এজন্যে যোগ্যতা মুখ্য না হলেও নির্দিষ্ট কোন কাজে অবশ্যই দক্ষতা থাকতে হবে।সেটিকে কাজে লাগিয়ে স্বীয় পরিশ্রমের দ্বারা অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।

 

উপরে বর্নিত উপায় গুলো একেবারে নির্ভেজাল কিছু উপায় যার মাধ্যমে সত্যিকারেই অনলাইন থেকে ইনকাম করা সম্ভব।কথাটা এজন্য বললাম যে, হাজার হাজার সাইটের ভীড়ে মানুষের আগ্রহকে পুজি করে অনেক ভুইফোড় ওয়েবসাইট গজিয়ে উঠেছে যেগুলোর কাজ হলো নানা প্রলোভনে মানুষের টাকা হাতিয়ে নেওয়া।এজন্যে অনলাইন ইনকামের সঠিক ও নির্ভরযোগ্য সাইটগুলো সম্পর্কে অবশ্যই জানা উচিত।

 

অনলাইন ইনকামের উপায়সমূহঃ-

কি কি উপায়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায় আমরা তার কিছু নমুনা জানলাম,এবার আমরা অনলাইন থেকে ইনকাম করার উপায়গুলোর একটি তালিকা দেখবো।
১। প্রোগ্রামিং
২। ইকমার্স
৩। আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং
৪। ইলার্নিং
৫। ডিজিটাল মার্কেটিং
৬। এফলিয়েট মার্কেটিং
৭। অনলাইনে সার্ভিস বিক্রি
৮। অনলাইনে ছবি বা ভিডিও ক্লিপ বিক্রি
৯। পিটিসি সাইট
১০। সার্ভে করে ইনকাম
১১। অনুবাদ
১২। কল সেন্টার
১৩। ভার্চুয়াল এসিস্ট্যান্স
১৪। সোশ্যাল মিডিয়া ইনফ্লয়েন্সার
১৫। ডোমেইন হোষ্টিং কেনা বেচা
১৬। kindle থেকে বই প্রকাশ
১৭। captcha সলভিং
১৮। ওয়েবসাইট/ফেসবুক/ইউটিউব/ইনস্ট্রাগ্রাম মনিটাইজ করে ইনকাম

অনলাইন ইনকাম সাইট

 

এরকম আরোও অনেক অনেক রকমের কাজ আছে যেগুলো করে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়।এখন আপনি যদি চান অনলাইন থেকে ইনকাম করতে তাহলে সর্বপ্রথম আপনার দক্ষতা ও সমক্ষতা বুঝতে হবে।নির্দিষ্ট একটি লক্ষ্যে স্থির থেকে পরিশ্রম করে যেতে হবে।উল্লেখ্য যে,এখানে বর্নিত কোন কাজই সোজা নয়।কোনটার ক্ষেত্রে থিওরিটিক্যাল জ্ঞান থাকা আবশ্যক আবার অনেকটার ক্ষেত্রে টেকনিক্যাল জ্ঞান থাকা আবশ্যক।
অন্যদিকে অনলাইন ইনকাম করার জন্য সঠিক উৎসের সন্ধান পাওয়াটাও জরুরী।আপনি কাজ জানেন কিন্তু মার্কেটপ্লেস চেনেন না তাহলে তো হবে না।আবার আপনি মার্কেটপ্লেস চেনেন কিন্তু বায়ারের সাথে যোগাযোগ করতে পারছেন না এমনটা হলেও অনলাইন থেকে ইনকাম করা আপনার জন্য খুব কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।

 

ধরে নিলাম আপনি ভাল গ্রাফিক্সের কাজ করতে পারেন, আপনি কোন আন্তর্জাতিক মার্কেটপ্লেসে পোর্টফোলিও সাবমিট করলেন,বায়ার কন্ট্রাক্ট হলো,কাজ বুঝে নিয়ে সফলতার সাথে কাজ করেও দিলেন কিন্তু দেখা গেল আন্তর্জাতিক ডিজিটাল মুদ্রায় আপনাকে পেমেন্ট দেওয়া হবে কিন্তু আপনি এমন এক দেশে বাস করেন যেখানে এরকম লেনদেন করার কোন আইনগত ভিত্তি নেই,ফলাফল বুঝতেই পারছেন।
আসল ব্যাপার হলো অনলাইন থেকে ইনকাম করার জন্য আপনাকে অনেকগুলো বিষয়ের যোগসূত্র ঘটাতে হবে।প্রথমত আপনি যে মাধ্যম থেকে ইনকাম করতে চান তার বিশ্বস্ততা ও নির্ভরযোগ্যতার সাথে কোন আপোষ চলবে না।সুতরাং আপনি যে ধরনের ওয়েবসাইট থেকে ইনকাম করতে চান তাদের সব নিয়ম কানুন শর্ত জেনে বুঝে মেনেই আপনাকে কাজে হাত দিতে হবে।

 

সে লক্ষ্যেই আজ আমরা এমন কিছু অনলাইন ইনকাম সাইট নিয়ে আলোচনা করবো বিশ্বস্ততা ও নির্ভরতার প্রশ্নে যেগুলো আপোষহীন।
যেমন বলি,আপনি একটি ওয়েবসাইট মনিটাইজ করে এডসেন্স থেকে টাকা ইনকাম করতে চাচ্ছেন,এখানে এডসেন্স হলো স্বয়ং গুগলের একটি প্রোগ্রাম।যার বিশ্বস্ততা নিয়ে কারোও মনে কোন সন্দেহ থাকতে পারে না।অন্তত একটি ব্যাপারে আপনি নিশ্চিত যে গুগল অন্যায় ভাবে আপনার একটি পয়সাও মেরে দিবে না।

 

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং করে অনলাইন থেকে ইনকাম করতে চান তাহলে আপনার কিছু বিশ্বস্ত মার্কেটপ্লেসের সন্ধান করতে হবে।কারন আপনার কাজের পারিশ্রমিকের টাকা এই তৃতীয় পক্ষের মার্কেটপ্লেস গুলোর মাধ্যমেই পেয়ে যাবেন।এখন যদি আপনি ভুল মার্কেটপ্লেস নির্বাচন করেন তাহলে আপনার কষ্টের টাকা বেহাত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা থাকে।
ধরুন আপনি খুব স্বল্প দক্ষতা নিয়ে পিটিসি বা সার্ভে সাইটে কাজ করে টাকা ইনকাম করতে চান,এখানে প্রশ্ন হলো সকালে জন্ম নিয়ে বিকেলে বন্ধ হয়ে যাওয়া অসংখ্য পিটিসি সাইটের মধ্যে আপনি কার উপরে ভরসা করবেন?
এসবকিছু বিবেচনা করে পরের অংশটুকু থেকে আমরা জানতে পারবো কিছু বিশ্বস্ত অনলাইন ইনকাম সাইটের নাম ও বিবরন।আশা করি আপনার মেধা এবং দক্ষতাকে সঠিক জায়গায় প্রদর্শন করবেন যাতে তার সঠিক মূল্য আপনি বুঝে পান।

 

অনলাইন ইনকাম সাইটঃ

এই পোষ্টটিতে শুধু শুরুর কিছু ধারনা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে। আদতে অনলাইনে ইনকামের ক্ষেত্রের ব্যাপ্তি টা এতোই ব্যাপক যে, তা এতো অল্প পরিসরে আলোচনা করা অসম্ভব।আশা রাখি পর্যায়ক্রমে প্রতিটা ক্ষেত্র ধরে আলাদা পোস্ট আকারে লেখার চেষ্টা করবো।
এমন অনেক অনলাইন ইনকাম সাইট আছে যেগুলো থেকে সরাসরি টাকা ইনকাম করা যায়।এগুলো সব নির্ভরযোগ্য ও বিশ্বস্ত সাইট।এদের পেমেন্ট নির্দিষ্ট সময়ে হয়ে থাকে।সুতরাং আপনার যদি দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি এই অনলাইন ইনকাম সাইট গুলো থেকে ভালো অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

 

আপনি যে ধরনের কাজ জানেন বা কিছুটা দক্ষতা আছে সেই অনুযায়ী আপনাকে অনলাইন মার্কেটপ্লেস বাছাই করতে হবে।আর যদি অনলাইন থেকে ইনকাম করার দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা থেকে থাকে তাহলে এড দেখে টাকা আয়,ভিডিও দেখে টাকা আয়,রেফার,সার্ভে,পিটিসি সাইট গুলোর লোভনীয় ফাদে পা না দিয়ে নিজে এমন কোন একটি কাজে দক্ষতা অর্জন করুন দেখবেন কাজ আপনাকে খুজে নিবে।
তবে, অনলাইন ইনকাম এর আরোও যে ক্ষেত্র গুলোর কথা না বললেই না। যেমন হলো, অনলাইনে শিক্ষামূলক বিভিন্ন সাইট আছে।

অনলাইন ইনকাম সাইট

যেগুলো নিয়মিত বিভিন্ন বিষয়ের উপর অনলাইন প্রতিযোগিতা আয়োজন করে থাকে।সেখানে মোটা অংকের টাকা পুরস্কার হিসাবে থাকে। টাকার অংকে এগুলোর পুরস্কারের মুল্যটা ফেলনা নয়।
যেমন মেশিন লার্নিং এর বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে অনেক বড় ধরনের প্রতিযোগিতা আয়োজন করে থাকে www.kaggle.com
ভিন্ন ভিন্ন বিষয়বস্তুর উপর ভিত্তি করে এমন অনেক বিশ্বস্ত ওয়েব সাইট আছে যেগুলোতে লক্ষ লক্ষ ডলার পুরস্কারের প্রতিযোগিতা হয়।অবশ্য এখানে শুধুমাত্র পুরস্কারের টাকাটাই মুখ্য নয় কারন এই প্রতিযোগিতার ফাকে নিজের শেখার কাজটাও হয়ে গেল।
এবার আমরা বিশ্বস্ত কিছু অনলাইন ইনকাম সাইট এর তালিকা দেখবো, সামান্য দক্ষতা থাকলে যেখান থেকে টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

 

অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর নাম ও বিবরনঃ-

হাজার হাজার সাইটের ভীড়ে কোনটা আসল আর কোনটা প্রতারনামূলক সাইট এটা যাচাই করে খুজে বের করা খুবই কঠিন কাজ।তবে আমি আজকে আপনাদের যে অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর কথা বলবো এগুলো একথাই প্রতিষ্টিত এবং নির্ভরযোগ্য।আর সেই সাইটগুলো সম্পর্কে আমরা সবাই কম বেশী জানি।আপনি গুগল ডট কম এর নাম হাজার বার শুনেছেন কিন্তু আপনি জানেন না কিভাবে গুগল থেকে ইনকাম করতে হয়।ঠিক এমনি ভাবে আজ আমি আপনাদের যেসব ইনকাম সাইটের কথা বলবো সেগুলোর বেশীরভাগ আপনাদের পরিচিত এবং জানা শুনার মধ্যেই।যার কারনে বিশ্বস্ততা এবং নির্ভরযোগ্যতার প্রশ্নে এই সাইট গুলো নিয়ে সন্দেহের কোন অবকাশ নেই।

 

১। গুগল ডট কমঃ-

 গুগল ডট কম চেনে না বা নাম শোনেনি এমন মানুষ খুজে পাওয়া মুশকিল।তবে এটা খুব কম মানুষই জানে যে গুগল থেকে কিভাবে টাকা ইনকাম করা যায়।শুধুমাত্র গুগল থেকে অনেকভাবে টাকা ইনকাম করার সুযোগ রয়েছে।তবে আজ আমি বলছি গুগল এডসেন্স এর কথা।এডসেন্স হলো গুগল থেকে টাকা ইনকাম করার একটি কার্যকর ও সহজ উপায়।

ব্লগিং

আপনি যদি এই পোষ্টটি পুরাটা পড়ে থাকেন তাহলে আপনি এতোক্ষনে জেনে গেছেন কিভাবে এডসেন্স ব্যবহার করে অনলাইন থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।

 

২। ইউটিউব ডট কমঃ-

এডসেন্স ব্যবহার করে যেভাবে ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকাম করা যায় ঠিক তেমনি এডসেন্স দিয়ে ইউটিউব থেকেও টাকা ইনকাম করা যায়।এছাড়াও এফলিয়েট মার্কেটিং,পেইড প্রমোশনের মাধ্যমে ইউটিউব থেকে টাকা ইনকাম করা যায়।
ইউটিউব ভিডিও দেখিয়ে অনলাইন ইনকাম করার জন্য আপনার কিছু জিনিষ প্রয়োজন,তা হলো,সৃজনশীলতা,পরিশ্রম করার মানসিকতা আর নিজের একটা ইউটিউব চ্যানেল
অনলাইন ইনকাম সাইট
অবশ্য শুধু ইউটিউব চ্যানেল থাকলেই হবে না সেটাতে মনিটাইজেশন অন থাকতে হবে।আর বর্তমানে ইউটিউব চ্যানেলে মনিটাইজেশন অন করার জন্য অবশ্যই পালনীয় কিছু শর্তাবলী আছে।যেগুলো পুরন করার মাধ্যমে আপনি আপনার ইউটিউব ভিডিও তে বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের অনুমতি পেতে পারেন।

 

৩। ফেসবুক ডট কমঃ-

সোশ্যাল মিডিয়া ফেসবুক সম্পর্কে কে না জানে,আর আজকাল তো ফেসবুকে সবারই একটা করে প্রোফাইল আছে। অবসর সময়ে অনেকেই ফেসবুকে সময় কাটায়।কিন্তু তারা জানে না সময় কাটানোর পাশাপাশি যে কেউ ফেসবুক থেকে ইনকাম করতে পারে।
যদিও সরাসরি ফেসবুক কোন অনলাইন ইনকাম সাইট নয় কিন্তু ফেসবুকের কিছু ফিচার ইউজারদের এখান থেকে টাকা আয় করার সুযোগ করে দেয়।

ফেসবুক ইনকাম

ফেসবুক হতে পারে আপনার পন্য বিক্রির উম্মুক্ত দোকান।অর্থাত আপনার টার্গেট কাস্টমারকে খুব সহজেই ফেসবুকে খুজে পাবেন।আপনার কাজ হলো তাদের সামনে আপনার পন্যটি সঠিক ভাবে উপস্থাপন করা।এভাবেই ফেসবুক কে বেচাকেনার মাধ্যম বানিয়ে যে কেউ টাকা ইনকাম করতে পারে।
ফেসবুক থেকে ইনকাম করার আরোও কিছু উপায় আছে।যেমন,ইদানিং ইউটিউবের মতো ফেসবুকেও ভিডিও আপলোড করা যায় এবং ফেসবুক পেজ মনিটাইজেশনের মাধ্যমে সেই ভিডিওতে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে রীতিমতো মোটা অংকের অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।
পাশাপাশি কারো যদি উল্লেখ্যযোগ্য সংখ্যাক ফ্যান ফলোয়ার থাকে তাহলে তারা এফলিয়েট লিংক শেয়ার করে কমিশন লাভ করতে পারে বা জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে প্রমোশনাল প্রোগ্রামে অংশগ্রহন করে প্রচুর টাকা ইনকাম করতে পারে।

 

৪। আপওয়ার্ক ডট কমঃ-

অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর মধ্যে আপওয়ার্ক হলো বর্তমান সময়ের তুমুল জনপ্রিয় একটি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস।যেখানে অনেক রকমের কাজ পাওয়া যায়।
লগো ডিজাইন,গ্রাফিক্স ডিজাইন,ওয়েব ডিজাইন,ওয়ার্ডপ্রেস,কনটেন্ট রাইটিং,ডাটা এন্টি সহ হাজারো রকমের কাজ এখানে পাওয়া যায়।
তবে ,এখানে কাজ পাবার পূর্ব শর্ত হলো আপনাকে অবশ্যই কোন না কোন কাজে দক্ষ হতে হবে।কাজ জানা থাকলে কাজের অভাব নাই।
সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো ,এখানে কাজ করে সেই কাজের পেমেন্ট আপনি খুব সহজেই নিজের ব্যাংক একাউন্টে নিতে পারবেন।

 

৫। ফ্রিল্যান্সার ডট কমঃ-

ফ্রিল্যান্সার ডট কম হলো আউটসোর্সিং করে ইনকাম করা যায় এমন অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর মধ্য অন্যতম।বলা হয়ে থাকে এখানে প্রায় ১৩৫০ এর অধিক রকমের কাজ পাওয়া যায়।
গ্রাফিক্স ডিজাইন থেকে শুরু করে ওয়েব এপ্লিকেশন,এসইও, এন্ড্রোয়েড এপস,গেমস,আর্টিকেল রাইটিংসহ নানান ধরনের কাজ এই সাইটটাতে পাওয়া যায়।প্রয়োজন শুধু দক্ষতা।

 

৬। গুরু ডট কমঃ-

আপনি যদি ডাটা এন্ট্রি, কন্টেন্ট রাইটিং, ট্রান্সলেশন এবং এ ধরনের আরো কাজ খুঁজছেন অথবা এ ধরণের কাজ করতে আগ্রহী থাকেন তাহলে আপনি গুরু ডট কম এ ভরসা করতে পারেন।
কারন আপনি এই অনলাইন ইনকাম সাইট টিতে এ ধরনের কাজ গুলো খুব সহজেই পেয়ে যাবেন।

 

৭। ট্রুল্যান্সার ডট কমঃ-

ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে আপনি যদি নতুন হয়ে থাকেন,অনলাইনের অসম প্রতিযোগিতায় যদি আপনি হিমশিম খেয়ে পড়েন তাহলে আপনার জন্য আছে ট্রুল্যান্সার ডট কম।কারন অনলাইন ইনকাম সাইট গুলোর মধ্যে অন্যান্য মার্কেটপ্লেসের তুলনায় এখানে প্রতিযোগিতা কিছুটা কম।

 

৮। পিপল পার আওয়ারঃ-

লন্ডনভিত্তিক ফ্রিল্যান্সিং ওয়েবসাইট হলো পিপল পার আওয়ার ডট কম।নামের সাথে কাজের অনেক মিল আছে।কারন এরা কাজের ১ ঘন্টার মধ্যেই টাকা পেমেন্ট করে।
আউটসোর্সিং এর অনেক ধরনের কাজই এখানে পাওয়া যায়।

 

৯। নাইনটি নাইন ডিজাইন ডট কমঃ-

নাম দেখেই বুঝা যাচ্ছে এটি মূলত যুক্তরাষ্ট্র ভিত্তিক অনলাইন ডিজাইন রিলেটেড ফ্রিল্যান্সিং সাইট।নাইনটি নাইন ডিজাইন ডট কম মুলত গ্রাফিক্স ডিজাইন,লগো ডিজাইন ,ওয়েব ডিজাইন এবং ডেভলোপমেন্ট এর মতো মূল্যবান কাজ গুলো পাওয়া যায়।
তবে আপনি যদি ডিজাইনে পারদর্শী হয়ে থাকেন তবে এই সাইট টি আপনার জন্য উপযুক্ত।কারন এখানে ডিজাইন সংক্রান্ত কাজ গুলো বেশী পাওয়া যায় ।যা থেকে ভালো অংকের অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।

 

১০। ফাইবার ডট কমঃ-

বর্তমান সময়ের বহুল ব্যবহ্রত এবং জনপ্রিয় আউটসোর্সিং সাইট হলো ফাইবার ডট কম।এখানে সর্বনিম্ন ৫ ডলার থেকে শুরু করে অনেক বেশী মূল্যমানের কাজ পাওয়া যায়।
ডাটা এন্টি,গ্রাফিক্স ও লগো ডিজাইন,কন্টেন্ট রাইটিং,টেক্সট টু ভয়েস ছাড়াও অনেক ধরনের কাজ এখানে পাওয়া যায়।নির্দিষ্ট কিছু কাজে সামান্য দক্ষতা থাকলে এখান থেকে অনেক পরিমান অনলাইন ইনকাম করা সম্ভব।

 

অনলাইন ইনকাম করার আরোও উপায়গুলো জানতে পড়ুনঃ


অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইটঃ-

নানা গুনে দক্ষ একজন মানুষ ফ্রিল্যান্সিং এ নিজের ক্যারিয়ার গড়ার স্বপ্নে বিভোর হয়ে নিজের দক্ষতার প্রমান রেখে অনলাইন থেকে উপার্জন করার সব রকম চেষ্টা করতে থাকে তখনই তার স্বপ্ন ভঙ্গ হয় যখন জানতে পারে যে অনলাইনে উপার্জিত টাকা তার পকেটে তোলার সহজসিদ্ধ কোন উপায় আমাদের দেশে নাই।ফ্রিল্যান্সিং শিখতে গিয়ে বা কাজ করতে গিয়ে এমন কোন বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সার নাই যে শুধুমাত্র পেমেন্ট সিস্টেমের জটিলতায় পড়ে তার কস্টার্জিত অর্থ হারাননি।
এমতাবস্থায় অনেকে বাধ্য হয়ে অনলাইন ইনকাম করার জন্য বাংলাদেশী সাইট খুজতে থাকেন।যাতে কস্টার্জিত টাকা সহজে নিজের পকেটে তুলতে পারেন।কিন্তু বাস্তবতা হলো,বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে এমন বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য সাইট গড়ে উঠেনি যাতে নিশ্চিতে কাজ করা যায় এই বিশ্বাস নিয়ে যে ,পরিশ্রমের অর্থ বিনা ঝামেলাই পকেটে ঢুকবে।যাও দু চারটা আছে তার সংখ্যাটা খুবই কম।
বাংলাদেশে বসবাসকারী একজন ফ্রিল্যান্সার যার কোন মাস্টারকার্ড নেই,পাইনিয়ার নেই ,পেপাল নেই বা কোন আন্তর্জাতিক পেমেন্ট রিসিভ করার অপশন নেই সে চাইবে যে এমন কোন সাইট যারা দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেম যেমন বিকাশ,রকেট বা নগদ এ পেমেন্ট করে থাকে।
অবশ্য এরকম কিছু পিটিসি সাইট,ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস গড়ে উঠলেও নানা কারনে এদের কার্যক্রম প্রশ্নবিদ্ধ।ফলে সাধারন ফ্রিল্যান্সার রা ভরসা করার মতো জায়গা পান না।
এক্ষেত্রে আশার কথা হলো ইদানিং বেশকিছু আন্তর্জাতিক ওয়েবসাইট তাদের পেমেন্ট সিস্টেমে বাংলাদেশী ব্যাংক একাউন্ট যোগ করার অপশন চালু করেছে ।ফলে ফ্রিল্যান্সারদের জন্য নতুন আশার আলো উম্মোচিত হয়েছে।
এছাড়াও যদি আপনি বাংলাদেশী সাইট থেকে অনলাইন ইনকাম করার আশা করে থাকেন তাহলে আপনি দেশী ইকমার্সের এফলিয়েট মার্কেটিং কে বেছে নিতে পারেন।কারন এরা আপনার প্রাপ্য অর্থ দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেমে প্রদান করে থাকে।
এছাড়াও দেশে নতুন ধারার একটা ব্লগিং সিস্টেম যাত্রা শুরু করেছে ,সেটা হলো অনেক নামীদামী ব্লগ সাধারন ব্লগারদের আর্টিকেল পাবলিশ করার সুযোগ দিয়ে থাকে,সেই আর্টিকেল থেকে উপার্জিত অর্থের একটা অংশ ব্লগার পেয়ে থাকে দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে।
পাশাপাশি কিছু দেশী ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস বিশ্বস্ততা অর্জনের চেষ্টা করছে তাদের মধ্য বিল্যান্সার,কাজকি ডট কম,স্বাধীন কাজ ডট কম উল্লেখযোগ্য।এরা সবাই কাজের মূল্য বিকাশ বা রকেট বা নগদের মতো দেশী ডিজিটাল মুদ্রায় পরিশোধ করে থাকে।তবে এক্ষেত্রে সতর্কতা অবলম্বন জ্রুরী।বিশ্বস্ততা ও নির্ভরযোগ্যতার প্রশ্নে এক ইঞ্চিও ছাড় নয়।

 

অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট এর তালিকা ও বিবরনঃ-

আগেই বলেছি বিশ্বাস করে পরিশ্রম করা এবং সেই পরিশ্রমের ফল হাতে পাওয়া বিষয়টি ততটাও সহজ নয়।তাও আবার সেটা অনলাইন থেকে ইনকাম।প্রসঙ্গত বাংলাদেশী আর্নিং সাইটের সংখ্যা খুবই কম।তবে দিন যতই যাচ্ছে ততই নতুন নতুন সম্ভাবনার দ্বার খুলে যাচ্ছে।তাই আজকে চারদিকে প্রতারনা আর লুটপাটের ভীড়ে এমন কিছু বিশ্বস্ত অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট এর কথা বলবো যেগুলো বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য মার্কেটপ্লেস।

 

বিল্যান্সার ডট কমঃ-

এটি একটি বাংলাদেশী অনলাইন আউটসোর্সিং মার্কেটপ্লেস।যেহেতু এটি বাংলাদেশী সাইট সেহেতু এটার পেমেন্ট সিস্টেম গুলো বাংলাদেশী।অর্থাত এখানে উপার্জিত অর্থ আপনি বিকাশ,রকেট বা যে কোন বাংলাদেশি ব্যাংক একাউন্টে নিতে পারবেন।
অনেকে আছেন পেশাগত কাজে খুবই দক্ষ কিন্তু ইংরেজীতে কাচা।যেহেতু আন্তর্জাতিক মার্কেটপ্লেস গুলো সব ইংরেজীতে এবং এগুলোর সব প্রক্রিয়া ইংরেজীতেই সম্পন্ন হয়।সেহেতু ইংরেজীতে দুর্বল ফ্রিল্যান্সার গন বিল্যান্সার ডট কম এর মতো সাইট গুলো থেকে অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট থেকে অনায়াসেই ইনকাম করতে পারবেন।
লিংকঃ-বিল্যান্সার ডট কম

স্বাধীন কাজ ডট কমঃ-

বাংলাদেশী ফ্রিল্যান্সারদের কথা বিবেচনা করে স্বাধীন কাজ ডট কম সাইট টি বানানো হয়েছে।এখানে বায়ার এবং ফ্রিল্যান্সার দুজনেই বাংলাদেশী হওয়ায় কাজের ড্রিল এবং পেমেন্ট হয় নিঝঞ্ঝাট।
আদতে এটি আপওয়ার্কের আদলে তৈরি একটি ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস।এখানে বায়ার তার কাজের বর্ননা দিয়ে পোষ্ট দিবে আর ফ্রিল্যান্সাররা সেই কাজের মূল্য নিয়ে বিড করবে।বায়ার এর মন পুত হলে ফ্রিল্যান্সার শর্ত সাপেক্ষে কাজটি পেয়ে থাকেন।
এখানে ড্রিলের টাকার মোট পরিমানের ২০ শতাংশ স্বাধীন কাজ ডট কম কেটে রাখে বাকী ৮০ শতাংশ টাকা ফ্রিল্যান্সার পেয়ে থাকে।
লিংকঃ-স্বাধীন কাজ ডট কম

কাজ কি ডট কমঃ-

আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং এর ক্ষেত্রে একেবারে নতুন হয়ে থাকেন,খুব ভালো মানের কাজে আপনার দক্ষতা নেই বললেই চলে,ইংরেজীতে বায়ারের সাথে কথোপকথনে আপনার সমস্যা হয় তাহলে আপনি অনলাইনে ইনকাম বাংলাদেশী সাইট গুলোর মধ্যে থেকে কাজ কি ডট কম কে বেছে নিতে পারেন।
নতুন হিসাবে এখানে আপনি গ্রাফিক্স ডিজাইন,ডাটা এন্ট্রি,কন্টেন্ট রাইটিং,ভিডিও এনিমেশন এর মতো সহজ কাজ গুলো পেয়ে যাবেন।
কাজ কি ডট কম কিছুটা ফাইভারের আদলে তইরি।এখানে ফ্রিল্যান্সার নির্দিষ্ট কাজের উপরে গিগ পাবলিশ করবে,বায়ার সব তথ্য যাচাই করে পছন্দ মতো ফ্রিল্যান্সারকে চুক্তিভিত্তিক কাজ দিবে।এখানেও উপার্জিত টাকা দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহার করে গ্রহন করা যাবে।
লিংকঃ-কাজ কি ডট কম
প্রচলিত মার্কেটপ্লেস গুলো ছাড়াও এমন কিছু বাংলাদেশী সাইট আছে যেগুলো থেকে আপনি অনায়াসেই ইনকাম করতে পারেন।যেমন নতুন ধারার কিছু বাংলা ব্লগ রয়েছে যেখানে আর্টিকেল লিখে আপনি ভালো পরিমানের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।এছাড়া কিছু দেশী ইকমার্স সাইট রয়েছে যেখানে এফলিয়েট মার্কেটিং এর সুবিধা নিয়ে ভালো পরিমানের টাকা ইনকাম করা সম্ভব।

 

উপসংহার :-

সত্যি বলতে কি যে আজকাল অনলাইন ইনকামের নামে নানা ধরনের ফাওতাবাজির মহাযজ্ঞ শুরু হয়েছে।সেটা অবশ্যই মাথায় রাখতে হবে।বিশ্বস্ত ও নির্ভরযোগ্য অনলাইন ইনকাম সাইট গুলো থেকে কাজ খুজে নিতে হবে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *