বাংলা ব্লগ

বাংলা ব্লগ থেকে আয় । বাংলা ব্লগ লিখে আয় করার উপায়

অনলাইন ইনকাম এডসেন্স ব্লগিং
কথিত আছে এডসেন্স এর মাধ্যমে বাংলা ব্লগ সাইট থেকে আয় করা খুব কঠিন বিষয়।সার্চ ভলিইম কম, ভিজিটর নাই, সিপিসি কম ইত্যাদি নানা বাধা নিপত্তির সামনে মোটামুটি খুরিয়ে খুতিয়ে চলছে বাংলা ব্লগ সাইটগুলো।

 

বাংলা ব্লগের জন্য খুবই দক্ষ ব্যক্তি ছাড়া ভালো কিছু করা সম্ভব নয়।এমন একটা ভীতি বা আশংকা আমদের মধ্যে সবসময় কাজ করে।অবশ্য এর অনেক গুলি কারনও রয়েছে।দীর্ঘ সময় বাংলা ব্লগ সাইটে পরিশ্রম করে আশানুরুপ ফলাফল না পেয়ে হতাশ হওয়ার লোকের সংখ্যা কম নয়।অনেকেই বলে বাংলা ব্লগের পাঠকের সংখ্যা কম।

বাংলা ব্লগ

বাংলা সাইট থেকে আয়

মানুষ বাংলায় লিখে গুগলে সার্চ করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করে না।বাংলা কিওয়ার্ডের সিপিসি কম।বাংলায় কিওয়ার্ড রিসার্চের জন্য প্রয়োজনীয় টুলসের অভাব।এমন হাজারো প্রতিবন্ধকতা ও সীমাবদ্ধতা নিয়ে বাংলা ব্লগ খুড়িয়ে খুড়িয়ে চলছে কোন রকমে।এমন একটা অবস্থায় আমি এসেছি বাংলা ব্লগ সাইট নিয়ে দুটি কথা বলার জন্য।আশা করি শেষ পর্যন্ত সাথে থাকবেন।
গুগল এডসেন্স পাওয়ার উপায় জানতে আরোও পড়ুন

বাংলা ব্লগ লিখে আয় করার উপায়ঃ-

বাংলাদেশী সাইট থেকে  আয় করার সহজ উপায় হলো বাংলায় ব্লগিং। নিজের একটি ব্লগ সাইট বানিয়ে তাতে গুগল এডসেন্সের বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে অনলাইন থেকে মোটা অংকের ডলার ইনকাম করা সম্ভব।এজন্য প্রয়োজন হবে গুগলের এডসেন্স।এডসেন্সের মাধ্যমে আপনার সাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আপনি দীর্ঘ মেয়াদে টাকা আয় করতে পারবেন।

বাংলা ব্লগ

বাংলা ব্লগ

 

নিজে এক‌টি ব্লগ বানিয়ে সেখান থেকে টাকা আয় করা একটি দীর্ঘমেয়াদী সমন্বিত প্রক্রিয়া। পুরা প্রক্রিয়াটি সম্পন্ন করতে কয়েকটি বিষয়ে তাত্বিক জ্ঞান অথবা বাস্তব অভিজ্ঞতা প্রয়োজন।দীর্ঘমেয়াদী পরিকল্পনা আর কঠোর পরিশ্রমের পাশাপাশি লেগে থাকতে পারলে বাংলা ব্লগ থেকে আয় করা সম্ভব।
ফ্রিল্যান্সিং এর জগতে যত রকমের কাজ আছে তার মধ্যে ব্লগিং হচ্ছে একটি সম্মানজনক ও লাভজনক পেশা।সবচেয়ে বড় সুবিধা হলো ব্লগিং এমন একটি পেশা যেখান থেকে দীর্ঘমেয়াদে প্যাসিভ ইনকাম করা সম্ভব।সামান্য কিছু দক্ষতা থাকলে আপনি হয়তো ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেসগুলো থেকে ডাটা এন্ট্রি,গ্রাফিক্স ডিজাইন,ক্লিপিং প্যাথ,ওয়েব ডিজাইন,ডেভলোপমেন্ট এর মতো হাজারো রকমের কাজ করে ভাল পরিমানে টাকা ইনকাম করতে পারবেন।এখানে আপনার ইনকাম উঠানামা করবে আপনার কাজ পাওয়ার উপর নির্ভর করে।মার্কেটপ্লেসে ঘোরা ,ক্লায়েন্ট কনভেন্স করা  তারপর কাজ করে সেই কাজের দামের একটা অংশ মার্কেটপ্লেসওয়ালাদের দিয়ে আপনাকে খুশী থাকতে হবে।
কিন্তু  ব্লগিং এমন একটি পেশা এখানে আপনার যদি একটি কোয়ালিটি সম্পন্ন ব্লগ থাকে,আর আপনি যদি সার্চ ভলিউম আছে এমন এমন কিওয়ার্ড নিয়ে এসইও মেনে আর্টিকেল লিখে নিয়মিত কনটেন্ট পাবলিশ করতে থাকেন,তাহলে আপনি দীর্ঘদিন ধরে আপনার ব্লগ সাইট থেকে টাকা আয় করতে পারবেন।তবে এটি অবশ্যই একটি দীর্ঘমেয়াদী প্রক্রিয়া।সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন সম্পর্কে যার সামান্য ধারনা আছে সে জানে একটি কিওয়ার্ড র‍্যাংক করায়ে ভাল অবস্থানে আনতে কতটা সময় আর সাধনার প্রয়োজন হয়।
তবে একটি কথা পরিস্কার বলে রাখতে চাই,যে কেউ চাইলেই ব্লগিংকরে কাড়ি কাড়ি টাকা ইনকাম করতে পারবে বিষয়টা মোটেও এমন নয়।বিশেষ করে বাংলা ব্লগিং করে টাকা ইনকাম করতে চাইলে কয়েকটি বিষয়ে সম্যক জ্ঞান থাকা আবশ্যক,যেমন ব্লগিং শুরু করতে একটি ওয়েবসাইট দরকার হবে,সেক্ষেত্রে ওয়েব ডেভলোপমেন্ট বা ওয়ার্ডপ্রেস এ জ্ঞান থাকা আবশ্যক,কিওয়ার্ড রিসার্চ,এসইও তো জানতেই হবে,আর সবচেয়ে গুরুত্বপুর্ন হলো ,স্বাচ্ছন্দ্যে যে কোন বিষয়ের উপর লেখালেখির দক্ষতা থাকতেই হবে।

 

বাংলা ব্লগ সাইট থেকে আয় করতে কি কি করতে হবে?

শুরুতেই আপনার একটি পরিকল্পনা দাড় করাতে হবে, অনলাইনে মানুষের আগ্রহের বিষয়গুলো এবং তার উপরে আপনার দক্ষতার সম্ভাবতা বিশ্লেষণ করে নিশ বাছাই করে সেই অনুযায়ী ওয়েবসাইটের টেকনিক্যাল কার্যক্রম শুরু করতে হবে।
ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন শুরু করার জন্য গুগলের চুড়ান্ত অনুমোদন প্রয়োজন হবে।গুগল এডসেন্সের পার্টনার প্রোগ্রামে সংযুক্ত হওয়ার জন্য এখানে শুরু করুন। নানা কারনে গুগল আগের তুলনায় ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শনের অনুমতি প্রদান করার পূর্বে ওয়েবসাইটের সব দিক খতিয়ে দেখবে।গুগলের দেওয়া রুলস রেগুলেশনের সম্পুর্ন বাস্তবায়ন হলে তবেই গুগল থেকে চুড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়।ছোট কোন বিষয় গুগলের নীতিমালার পরিপন্থ হলে গুগল সেই সাইটে এডসেন্স এপ্রুভাল দেয় না।

বাংলা ব্লগ

বাংলা ব্লগে এডসেন্স

অনুমোদন পাওয়ার পর সাইটের ভিজিটর আনার ব্যাপারে মনোযোগ দিতে হবে। কারন ভিজিটরের সংখ্যা ও একটিভিটির উপর বাংলা সাইট থেকে আয় এর পরিমান নির্ভর করবে।
গুগল এডসেন্দ থেকে আপনার আয়কৃত অর্থ খুব সহজেই দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেম ব্যবহার করে হাতে পাবার সুযোগ আছে।পেমেন্ট অপশানে স্থানীয় ব্যাংক একাউন্ট যুক্ত করার সুযোগ রয়েছে।বিধায় আয় কৃত টাকা সহজেই নিজের ব্যাংক একাউন্টে পাওয়া যায়।
অনলাইনে ইনকামের টাকা বিকাশে পাওয়ার উপায় জেনে নিন
এছাড়াও দেশে নতুন ধারার একটা ব্লগিং সিস্টেম যাত্রা শুরু করেছে ,সেটা হলো অনেক নামীদামী ব্লগ সাধারন ব্লগারদের আর্টিকেল পাবলিশ করার সুযোগ দিয়ে থাকে,সেই আর্টিকেল থেকে উপার্জিত অর্থের একটা অংশ ব্লগার পেয়ে থাকে দেশীয় পেমেন্ট সিস্টেমের মাধ্যমে।

বাংলা ব্লগ

বাংলায় ব্লগিং

নতুনদের জন্য এটি একটি ভাল সুযোগ। কারন এখানে থেকে কনটেন্ত রাইটিং, এসইও, ওয়েবসাইট ম্যানেজমেন্ট এর ব্যাপারে সুস্পষ্ট ধারনা লাভ করতে পারবে আবার পাশাপাশি কিছু টাকাও ইনকাম করে নিতে পারবে।লেখালেখিতে পারদর্শী যে কেউ কোন প্রকার ইনভেষ্ট না করেই অন্যের ব্লগের জন্য  আর্টিকেল লিখে অনায়াসেই কিছু টাকা ইনকাম করেতে পারে। পুরো বিষষটা আয়ত্বে আসলে নিজেই ব্লগিংয়ের জগতে যাত্রা শুরু করতে পারেন।
বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে বাংলা সাইট থেকে আয় করতে চাইলে এডসেন্সের বাইরেও আরোও কিছু উপায় আছে।এডসেন্সের বিকল্প হিসাবে আরোও অনেক এড নেটওয়ার্ক প্রতিষ্টা লাভ করেছে।যেমন,ইজোয়িক,এডেস্ট্রা,প্রপেলার এড ইত্যাদি।
জানতে চান ফ্রিল্যান্সিং কিভাবে শিখবো?
বিজ্ঞাপন প্রদর্শন না করেও বাংলা সাইট থেকে আয় করার আরোও কিছু উপায় আছে।যেমন এফলিয়েটস মার্কেটিং,সোজা ভাষায় বলতে গেলে,যথেষ্ট ভিজিটর আছে এমন একটা বাংলা ওয়েবসাইট যদি আপনার থাকে,তাহলে সেখানে আপনি এফলিয়েটস লিংক প্রচার করে পন্য বিক্রির মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা আয় করতে পারবেন।
অথবা আপনার সাইটের বিষয়বস্তু যদি প্রোডাক্ট রিভিউ টাইপের হয় তাহলে আপনি নির্দিষ্ট কোন পন্যের জন্য স্পন্সর পোষ্ট করে টাকা ইনকাম করতে পারেন।
এছাড়াও যদি আপনার সাইট অনেক বেশী জনপ্রিয় হয় তাহলে আপনি স্থানীয় বিজ্ঞাপন প্রচার করে তৎক্ষণাৎ মোটা অংকের টাকা ইনকাম করতে পারবেন।

 

বাংলা ব্লগ সাইট থেকে আয় করতে কি কি থাকা লাগে?

আপনার যদি একটি প্রাসঙ্গিক ডোমেইন থাকে তাহলে যেকোন হোষ্টিং সার্ভিস প্রোভাইডারের নিকট থেকে একটি হোষ্টিং প্যাকেজ কিনে নিতে হবে। এবার ওয়ার্ডপ্রেস ইনস্টল করে লাইটওয়েট একটি থিম (এসইও ফ্রেন্ডলী) ইনস্টল করে তাতে প্রয়োজনীয় প্লাগিন ইনস্টল করতে হবে।
ডেমো ইম্পোর্ট করে সামান্যকিছু কাস্টমাইজেশন করে ব্লগটি আর্টিকেল পাবলিশ করার উপযোগী করতে করতে হবে।    এখানে কিছু টেকনিক্যাল ব্যাপার আছে, যেমন সাইট স্ট্রাকচার, লোডিং টাইম ইত্যাদি বিষয়গুলোর ব্যাপারে আপনাকে মনোযোগী হতে হবে।
এবার আপনাকে কিওয়ার্ড নিয়ে মাথা ঘামাতে হবে।সঠিক কিওয়ার্ড নির্বাচন করে সেই অনুযায়ি কনটেন্ট রেডি করতে হবে।গুগলের কাছে কনটেন্ট ইজ কিং। সঠিক কনটেন্ট চিনে নিতে গুগল ভুল করে না। সুতরাং যে বিষয়ের উপর কনটেন্ট বানাতে চান সে বিষয়ে পরিস্কার ধারনা থাকতে হবে। পাঠক যে বিষয়টা খুজয়ে খুজতে আপনার সাইট পর্যন্ত এসেছে, আপনার আর্টিকেলে যেন সেই প্রশ্নের উত্তরটা পেয়ে যায়। পরিপুর্ন আর্টিকেল আর সঠিকভাবে এসইও সম্পন্ম করতে পারলে আপনার আর্টিকেল গুগলের পেজে নিজের অবস্থান হড়ে নিতে পারবে। কোন ভাবেই অন্য কারো থেকে কপি না করে নিজের মতো করে  লিখে যেতে পারেন।

বাংলা ব্লগ

আর্টিকেল লেখার সময় কিওয়ার্ড রিসার্চ ও অনপেজ এসইও টা ভালো ভাবে করে নিবেন। প্রচুর তথ্য সংযোজন করবেন, একটি প্রাসঙ্গিক ফিচার ইমেজ সেট করে নিবেন। আর পোষ্টের মধ্যে প্রাসঙ্গিক ইমেজ ব্যবহার করবেন।
এভাবে ২৫/৩০ টি ইউনিক পোষ্ট করার পর আপনি এডসেন্স অনুমদনের জন্য আবেদন করয়ে পারবেন।নির্দিষ্ট সময়ে রিভিউ শেষে গুগল থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে আপনার ব্লগ সাইটি এড প্রদর্শনের উপযুক্ত কিনা।
চুড়ান্ত অনুমোদন পেলে কিছু প্রক্রিয়ার শেষে আপনার সাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন শুরু হয়ে যাবে। বিজ্ঞাপন প্রদর্শন শুরু মানে আপনার আসল কাজ শুরু হলো। উপর্যুপরি কোয়ালিটি আর্টিকেল পাবলিশ করার পাশাপাশা এখানে আপনাকে কিছু অফ পেজ এসইও এর কাজ করতে হবে। নিয়ম করে নির্দিষ্ট সময়ে আর্টিকেল পাবলিশ করা খুব ভালো অভ্যাস।

বাংলা ব্লগ

বাংলায় ব্লগিং ফ্যাক্টর

ব্লগিংয়ের জগতে অল্প সময়ে অনেককেই দেখেছি, বাংলা ব্লগ নিয়ে আশাহত হতে। এর যথেষ্ট কারনও আছে, বাংলায় সার্চ করা মানুষের সংখ্যা কম অর্থাৎ বাংলায় সার্চ ভলিউম কম থাকে। সেকারনের ১০০০ ভিজিটরের একটি ইংরেজী ব্লগ সাইট থেকে যে পরিমান আয় হয়, একই সংখ্যার ভিজিটর নিয়ে বাংলা সাইট থেকে আয় অর্ধেকেরও কম। এমন হওয়ার কারন হলো বাংলা কিওয়ার্ড গুলোর সিপিসির পরিমান কম থাকে।
জেনে নিন কি কি উপায়ে অনলাইন থেকে ইনকাম করা যায়
এজন্যেই সিপিসি দেখে কিওয়ার্ড বাছাই করতে হবে আর যদি ভিজিটরের কথা বলেন তাহলে আমি বলবো বাংলায় লিখে গুগলে সার্চ করার মানুষের সংখ্যা কম হলেও ধীরে ধীরে মানুষ গুগল সার্চের প্রতি আগ্রহী হচ্ছে।

 

পরিশেষেঃ-

এক কথায় মানুষ যখন গুগল সার্চের সঠিক ব্যবহার করা শিখে ফেলবে তখন বোধ করি বাংলা ব্লগের সুদিন আসবে।আর সেই দিনটি মনে হয় খুব বেশী দূরে নয়। সুতরাং একথা বলায় যায় যে, প্রতিকুলতা ও সীমাবদ্ধতা সত্ত্বেও সামান্য দক্ষতা থাকলে বাংলা ব্লগ সাইট থেকে আয় করা অসম্ভব নয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *