Bangla voice typing

Bangla voice typing করুন,কোন কিছু টাইপ না করেই

এন্ড্রোয়েড তথ্য প্রযুক্তি
এমনিতেই এন্ড্রোয়েড ফোনের ছোট পর্দায় টাইপিং করাটা বেশ ঝামেলার। Bangla voice typing এর মাধ্যমে সহজেই ফোনে মুখে বলে বাংলা টাইপিং করা যাবে।

 

 

Bangla voice typing এর সুবিধাসমূহ :-

বিশেষ করে Bangla voice typing এর সুবিধা গ্রহন করে খুব দ্রুত অনলাইন চ্যাটিং করে বন্ধুদের চমকে দেওয়া যায়। এতো দ্রুত রিপ্লাই করতে পারবেন যাতে যে কেউ অবাক হবে।

 

এছাড়াও যারা বিভিন্ন ধরনের লেখালেখির সাথে জড়িত বাংলা ভয়েস টাইপিং তাদের জন্য রীতিমতো আশির্বাদ।
Bangla voice typing ব্যবহার করে বড় বড় আর্টিকেল গুলো নিমিষেই লিখে ফেলা যায়। তাছাড়াও সোশাল মিডিয়ায় পোষ্ট, কমেন্ট লেখার ক্ষেত্রেও এটা খুবই কার্যকরী।

 

স্পিচ টু টেক্সট প্রযুক্তির কল্যানে গুগলের ভয়েস টাইপিং কি বোর্ড এই সুবিধা করে দিয়েছে।যার মাধ্যমে অনর্গল ফোনে মুখে বলে Bangla voice typing করে যাওয়া সম্ভব।

 

৯৮ % নির্ভুলতা নিশ্চিত করার পাশাপাশি এটি প্রতি মিনিটে ৩৫০ টি শব্দ টাইপ করতে সক্ষম।ভয়েস টাইপিং এর ব্যবহারবিধি খুব সহজবোধ্য হওয়ায় যেকেউ খুব সহজেই বাংলা ভয়েস টাইপিং ব্যবহার করতে পারে। যার দ্বারা তার মুল্যবান সময় এবং শক্তি সঞ্চয় করতে পারে।

 

পাশাপাশি হিজিবিজি টাইপিং এর বিরক্তিকর ঝামেলা থেকে নিমিষেই মুক্তি পেতে পারে।লেখালেখির যেকোন ক্ষেত্রেই Bangla voice typing এর সুবিধা ভোগ করা যাবে।

 

বন্ধুদের সাথে দ্রুত চ্যাটিং করা, প্রবন্ধ বা গল্প লেখা, সোসাল মিডিয়ায় পোষ্ট, কমেন্ট করা ভয়েস টাইপিং এর কল্যানে সহজ থেকে সহজতর হয়ে যাবে।

 

ভাবুন যে, একটি অক্ষর টাইপ না করে শুধু মুখে বলে বাংলায় টাইপিং করে আপনি একটি গল্প লিখে ফেললেন।
কত সহজ, তাই না?

 

এন্ড্রোয়েড ফোনে বাংলা টাইপিং :-

শুরুতেই বলে রাখা ভালো। যেহেতু এটি অনলাইন বেজড এপ্লিকেশন তাই এটি ব্যবহার করতে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে।
তবে কিছু ল্যাংগুয়েজ অফলাইন এ কাজ করে। তার জন্য সেই ল্যাংগুয়েজ প্যাকের অফলাইন লাইব্রেরি আগে থেকেই ডাউনলোড করে রাখতে হয়।
খুব সহজ কিছু ধাপ অনুসরন করে Bangla voice typing সুবিধা ভোগ করা যাবে। এজন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরন করুন।
গুগল প্লে ষ্টোর থেকে গুগল এপস ইনস্টল করুন। যথারীতি ইন্সটল করা এপসটি আপডেট করতে হবে।
এবার সেটিং মেনু থেকে ল্যাংগুয়েজ ইনপুট সিলেক্ট করুন। ডিফল্ট কিবোর্ড এর তালিকা দেখা যাবে। এখানে অ্যাড কিবোর্ড এর মাধ্যমে গুগল ভয়েস টাইপিং চেক বক্সে ক্লিক করতে হবে।
বাংলা টাইপিং করতে চাইলে ফোনের ল্যাংগুয়েজ সেটিং এ বাংলা সিলেক্ট করতে হবে। এবার যেকোনো টেক্সট বক্সে গিয়ে কিবোর্ডে মাইক্রোফোন চিহ্নিত গুগলের ভয়েস টাইপিং বাটনটি চাপতে হবে।
এবার আপনার কাঙ্খিত শব্দগুলো মুখে উচ্চারণ করুন। দেখুন সেগুলো আপনার টেক্সট বক্সে অটোমেটিক লেখা হয়ে যাচ্ছে।

 

গুগল ডকে Bangla voice typing:-

গুগল ডক ব্যবহার করে যেকোন ধরনের ডকুমেন্ট তৈরি করা যায়। আর এই লেখালেখির কাজকে সহজতর করতে এখানেও Bangla voice typing বেশ কার্যকরী।
শুধুমাত্র গুগল ডকস এ বাংলায় ভয়েস টাইপিং এর সুবিধা রয়েছে।
গুগল ডকে Bangla voice typing ব্যবহার করে অনায়াসেই যে কোন সাইজের বই, গল্প, প্রবন্ধ, কবিতা লিখে ফেলা যায়।
পিসি থেকে গুগল ডকের ওয়েব ভার্সনে ঢুকে বাংলা ভয়েস টাইপিং এনাবল করে নিতে হবে।
এবার একটা new document ওপেন করে নিতে হবে। বাম পাশে মাইক্রোফোন চিহ্ন দেখা যাবে।
মাইক্রোফোনে ক্লিক করে আপনি যা লিখতে চান সেটা মুখে বলা শুরু করতে হবে।
তাহলেই দেখবেন কাসসরের জায়গায় আপনার মুখে উচ্চারন করা শব্দ গুলো লিখা হয়ে যাচ্ছে।

 

Bangla voice typing এবং Google Gboard:-

গুগল এর Gboard কিবোর্ড এন্ড্রোয়েড ফোনে ইনস্টল করে খুব সহজেই Bangla voice typing করা যায়।এটিও খুব সহজ প্রক্রিয়া।
প্রথমে গুগল প্লে ষ্টোর থেকে সরাসরি এই লিংক দ্বারা Google Gboard এন্ড্রোয়েড এপসটি ইনস্টল করতে হবে।
গুগল এপসটি আপডেট না থাকলে আপডেট করে নিতে হবে।
Gboard এপ্লিকেশন খুলে ল্যাঙ্গুয়েজ সেটিং এ বাংলা ল্যাঙ্গুয়েজ কনটেন্ট ডাউনলোড করতে হবে। ল্যাঙ্গুয়েজ সেটিংস এ ডিফল্ট ল্যাঙ্গুয়েজ সেটিংস এ বাংলা সিলেক্ট করে দিতে হবে।
এবার এন্ড্রোয়েড ল্যাঙ্গুয়েজ সেটিংস এ Gboard কে ডিফল্ট কিবোর্ড হিসাবে সিলেক্ট করতে হবে।এবার যেকোন টেক্সট বক্সে ঢুকলেই Gboard কিবোর্ড এ ভয়েস টাইপিং আইকন(মাইক্রোফোন) দেখা যাবে।সেখানে ক্লিক করেই কথা বলা শুরু করুন,দেখুন আপনার বলা কথা গুলো টেক্সট আকারে লেখা হয়ে যাচ্ছে।
আজ এপর্যন্ত, অচিরেই নতুন কোন দরকারী পোস্টে আবার কথা হবে। সমস্যা বা পোস্টটির ব্যাপারে কমেন্ট বক্সে জানাতে ভুলবেন না।
এন্ড্রোয়েড ফোনে লিনাক্স ইনস্টল করে প্রোগ্রামিং চর্চা কে সহজ করুন।

 

শেষকথাঃ-

যে কোন অবস্থাতেই ভয়েস টাইপিং সময় এবং কষ্ট দুটোই বাচায়। সেটা যদি মুখে বলে লেখা যায়,  তাহলে তো আরোও সুবিধা।
কারন স্মার্ট ফোনের ছোট পর্দার ছোট কিবোর্ডে হাতে বাংলা টাইপ করা শুধু কস্টকর নয় বিরক্তিকরও বটে। তাই টাইপ করা ঝামেলা থেকে বাঁচতে Bangla voice typing সেরা বিকল্প।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *