লিনাক্স

লিনাক্স ইনস্টল করুন আপনার এন্ড্রোয়েড ফোনে-পর্ব-২

প্রোগ্রামিং লিনাক্স

প্রোগ্রামিং এর অনুশীলনের জন্য যারা এন্ড্রোয়েড ফোন ব্যবহার করতে চান, তাদের জন্য লিনাক্স ইনস্টল করুন আপনার এন্ড্রোয়েড ফোনে-পর্ব-১ লিখেছিলাম।

 

আলোচনা করেছিলাম কিভাবে এন্ড্রোয়েড ফোনে Termux দিয়ে Ubuntu এর কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ইন্সটল করতে হয়।
আর আজকের পর্বে দেখবো Ubuntu কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ব্যবহার করে কিভাবে এন্ড্রোয়েড ফোনে লিনাক্স ডেক্সটপ এনভারনমেন্ট ইন্সটল করা যায়।

 

পুর্বসূত্রঃ-

যারা আজকের পোষ্টে নতুন তাদের জন্য ভালো হয় পর্ব -১ এর পোষ্টটি দেখে আসা। এই লিঙ্কে এন্ড্রোয়েড ফোনে লিনাক্স এনভারমেন্ট (পর্ব -১) নামের পোষ্টটি পাওয়া যাবে।

 

লিনাক্স ডেক্সটপ এনভারনমেন্ট ইনস্টলঃ-

আর যারা ইতিমধ্যেই আগের পোষ্টটির ধাপগুলো অনুসরন করে Ubuntu এর কমান্ড লাইন ইন্টারফেস ইন্সটল করেছেন, এবার শুধু Google playstore থেকে Vnc Viewer নামের এপসটি ইন্সটল করে রাখি।

 

প্রথমে Termux থেকে. /start-ubuntu.Sh স্ক্রিপ্ট রান করে Ubuntu কমান্ড লাইনে আসি।যথারীতি apt update && apt upgrade কমান্ড দিয়ে শুরু করি।

 

পুর্বে ইন্সটল করা Anlinux এপ্লিকেশন টি খুলুন, desktop environmentথেকে প্রথমে ডিস্ট্রিবিউশন সিলেক্ট করুন। এবার environment সিলেক্ট করুনআরেকবার পাসওয়ার্ড টাইপ করে ভেরিফাই করুন, এবার আপনার কাজ মোটামুটি শেষ। ইন্সটলেশন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পর আপনার vnc server মোটামুটি প্রস্তুত।

 

এবার সদ্য ইন্সটল করা vnc viewer এপ্লিকেশনটি খুলুন, + চিহ্নিত বাটনটি চেপে host name এ দিন localhost:1 (কোন ক্ষেত্রে পোর্ট নাম্বারটি 1 এর জায়গায় 2 অথবা 3 হতে পারে) এবার ইচ্ছামতো যেকোন একটা এনভারনমেন্ট এর একটা নাম দিন। এবার Create বাটনে চাপ দিয়ে নতুন connection তৈরি করি।

 

এবার vnc viwer থেকে আপনার তৈরি করা ওয়ার্কপ্লেস এ যান, নীচে conect বাটনটি তে ক্লিক করে আপনার তৈরি করা vnc এর পাসওয়ার্ড টা দিন। আপনার সামনে যে উইন্ডো টি দেখতে পাবেন সেটাই হলো উবুন্টুর গ্রাফিক্যাল ইউজার ইন্টারফেস বা উবুন্টর ডেক্সটপ এনভারনমেন্ট।

 

রুট সংক্রান্ত বাধ্যবাধকতার কারনে লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমের সব ফিচার, এপ্লিকেশন, টুলস গুলো হয়তো থাকবে না।
তবে যেটুকু থাকবে তাতেই python, nodejs, php, ruby সহ আরোও অনেক প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের ডেভলোপমেন্ট এনভারনমেন্ট ইন্সটল করা যাবে।

 

আর অনুশীলনের কাজ চালানো যাবে। বিশেষ করে যারা প্রোগ্রামিংয়ের গোড়ার বিষয়টা বুঝার চেষ্টা করছেন।
লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেমের কাজের ধারা, ফাইল সিস্টেম টা যদি আপনি বুঝতে পারেন তবে যেকোন প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজকে আপনি সহজেই বুঝতে পারবেন।

 

প্রত্যেকটা প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের সিনটেক্স, ভ্যারিয়েবল, লুপ, ডাটা টাইপ আলাদা আলাদা হলেও এক্সিকিউশন প্রক্রিয়া টা কিন্তু প্রায় একই।

 

সুতরাং এই পর্বে আরোও পোষ্ট এর প্রয়োজন আছে।লিনাক্স এনভারনমেন্ট এ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এনভারনমেন্ট সেট আপ এবং প্রোগ্রামিং এর অনুশীলনের ব্যাপারে।

 

যেখানে উবুন্টুর কমান্ট লাইন ব্যবহার করে বেশকিছু প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজ এর ডেভলোপমেন্ট এনভারনমেন্ট তৈরী করার উপায় নিয়ে আলোচনা করা হবে।

 

পরিশেষেঃ-

পৃথিবীর সর্বাধিক ব্যবহ্যত ও জনপ্রিয় ওপেনসোর্স অপারেটিং সিস্টেম হলো লিনাক্স।শুরুতে কমান্ড লাইন ভিত্তিক অপারেটিং সিস্টেম চালু হলেও পরবর্তীতে ডেক্সটপ এনভারনমেন্ট বিকাশ লাভ করে।স্মার্টফোনের জন্য আজকের যে এন্ড্রোয়েড অপারেটিং সিস্টেম সর্ব্বোচ্চ ব্যবহার হয়ে থাকে সেটিও এই লিনাক্স কার্নেলের উপরেই তইরি।প্রথমত কম্পিউটার প্রোগ্রামিং এর ভিত্তিও এই লিনাক্স অপারেটিং সিস্টেম।সেজন্যই লিনাক্সের সাথেই বেশীর ভাগ প্রোগ্রামিং ল্যাঙ্গুয়েজের ডেভলোপমেন্ট এনভারনমেন্ট বিল্ট ইন থাকে।শুধুমাত্র লিনাক্স ইনস্টল করেই আপনি প্রোগ্রামিং চর্চার একটা প্লাটফর্ম পেয়ে যাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *